সব
বুধবার, ১৪ এপ্রিল ২০২১, ১ বৈশাখ ১৪২৮
 

সর্প আতঙ্কে ইবি

করোনাভাইরাসে দীর্ঘদিন বন্ধ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দেখা দিয়েছে সর্প আতঙ্ক।

 

আপডেট : ০৩ এপ্রিল ২০২১, ১২:২৮

করোনাভাইরাসে দীর্ঘদিন বন্ধ ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দেখা দিয়েছে সর্প আতঙ্ক। 

ঝোপঝাড় পরিষ্কার না করায়  আবাসিক হল এলাকা, রাস্তাসহ বিভিন্ন স্থানে অবাধে ঘুরে বেড়াচ্ছে বিষাক্ত সাপ। এতে ক্যাম্পাসে আবাসিক এলাকায়  অবস্থানরত  আবাসিক শিক্ষক, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের মাঝে বিরাজ করছে সাপ আতঙ্ক। এ ছাড়া ক্যাম্পাস পার্শ্ববর্তী এলাকায় অবস্থানরত  শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন প্রয়োজনে হল ও ক্যাম্পাসে নিয়মিত যাতায়াত করে। এতে শিক্ষার্থীদের মাঝেও সাপ আতঙ্ক বিরাজ করছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, ক্যাম্পাসের  রাস্তাগুলোর দুই ধার দিয়ে আশঙ্কাজনকহারে বেড়েছে ঝোপ-ঝাড়। বিভিন্ন স্থানে জমেছে আবর্জনার স্তূপ। এ ছাড়াও আবাসিক হলসমূহ, মফিজ লেক, ক্রিকেট মাঠ, ফুটবল মাঠ, টিএসসিসি, কেন্দ্রীয় মসজিদ সংলগ্ন এলাকা, একাডেমিক ভবনগুলোর চারদিকে ও শিক্ষকদের আবাসিক এলাকা ঝোপঝাড়ে ভরে উঠেছে। এ বিষয়ে একাধিক শিক্ষক ও শিক্ষার্থী জানান, ‘ক্যাম্পাসে ঝোপঝাড় বেড়ে যাওয়ার সাপের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। অতিরিক্ত গরমে দিন কিংবা রাতে বিষাক্ত সাপগুলো রাস্তায় বের হয়। এতে আমাদের মৃত্যুঝুঁকি নিয়ে চলাফেরা করতে হয়। এ জন্য প্রশাসনের উচিত ক্যাম্পাসের ঝোপঝাড় পরিষ্কার করা।'

এ ছাড়াও ক্যাম্পাসের আবাসিক হলগুলোর সিঁড়ি ও রুমের ভিতরে সাপের খোলস পড়ে থাকতে দেখা গেছে।  সম্প্রতি বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে ২০টিরও অধিক সাপ মারা পড়েছে।

শিক্ষক-শিক্ষার্থী ছাড়াও ক্যাম্পাস নিরাপত্তার কাজে নিয়োজিত আনসার সদস্যের ঝুঁকি আরো বেশি। ক্যাম্পাস নিরাপত্তার স্বার্থে রাতদিন তাদের বাইরে অবস্থান করতে হয়। এতে তাদেরও মাঝে সাপ আতঙ্ক দেখা দিয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের সাদ্দাম হোসেন হলের আবাসিক শিক্ষার্থী মনিরুজ্জামান বলেন, 'কয়েক দিন আগে হল থেকে প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিতে ক্যাম্পাসে যাই। আগের তুলনায় হলের চারদিকে ঝোপঝাড় অনেক বেড়েছে। হলের ভিতরে বিভিন্ন স্থানে ও  সিঁড়িতে অসংখ্য সাপের খোলস পড়ে থাকতে দেখা যায়। এটা রীতিমতো ভয়ের কারণ। আশঙ্কা জাগে না জানি কখন হুট করে সাপ বেরিয়ে আসে। সবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া জরুরি।'

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় মেডিকেল সেন্টারের ভারপ্রাপ্ত প্রধান চিকিৎসক ডা. এস এম নজরুল ইসলাম বলেন, সাপে কাটার প্রাথমিক চিকিৎসাসেবা মেডিকেল সেন্টারে রয়েছে।'

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, 'কাউকে সাপে দংশন করুক এটা আমরা চাই না। সাপের উপদ্রব রোধে দ্রুত ঝোপ-ঝাড় অপসারণ করা হবে। নিরাপত্তার স্বার্থে ক্যাম্পাসের লাইটিং সিস্টেম মেরামত করা হবে। সাপে কাটার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারকে তাৎক্ষণিক চিকিৎসা নিশ্চিত করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে।'

/আরআর/

ক্যাম্পাস বিভাগে লেখা পাঠানোর ঠিকানা : ‍[email protected]

সাম্প্রতিক

১২, ১৩ এপ্রিলও লকডাউন

১২, ১৩ এপ্রিলও লকডাউন

মিয়ানমারে সেনাবিরোধী বিক্ষোভে এক শহরেই নিহত ৮০

মিয়ানমারে সেনাবিরোধী বিক্ষোভে এক শহরেই নিহত ৮০

মিতা হক রবীন্দ্রসংগীত প্রেমীদের হৃদয়ে চিরকাল বেঁচে থাকবেন

মিতা হক রবীন্দ্রসংগীত প্রেমীদের হৃদয়ে চিরকাল বেঁচে থাকবেন

প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য ১৭ এপ্রিল

প্রিন্স ফিলিপের শেষকৃত্য ১৭ এপ্রিল

হবিগঞ্জে গণপিটুনিতে দুই ডাকাত নিহত

হবিগঞ্জে গণপিটুনিতে দুই ডাকাত নিহত

নবীন বিতার্কিকদের জন্য কুবি ডিবেটিং সোসাইটির কর্মশালা

নবীন বিতার্কিকদের জন্য কুবি ডিবেটিং সোসাইটির কর্মশালা

যেন সবুজের স্বর্গভূমি

যেন সবুজের স্বর্গভূমি

ইবির ধর্মতত্ত্ব অনুষদে হবে পৃথক ভর্তি পরীক্ষা

ইবির ধর্মতত্ত্ব অনুষদে হবে পৃথক ভর্তি পরীক্ষা