সব
রবিবার, ০৭ মার্চ ২০২১, ২১ ফাল্গুন ১৪২৭
DBBL Ad

হাজতির হদিস না পেয়ে জিডি

ভাসানচরে রোহিঙ্গারা নিরাপদে আছে : বিশেষজ্ঞদের অভিমত

দুই বছরে দেশে ৫ সাংবাদিক খুন

সারা দেশের ১০৮টি ঘটনা বিশ্লেষণ করে প্রকাশিত ‘বাকস্বাধীনতা ও গণমাধ্যম: প্রবণতা ও করণীয়’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনে গণমাধ্যম উন্নয়ন ও যোগাযোগ বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ‘‌সমষ্টি' জানিয়েছে, ২০১৮ ও ২০১৯ সালে দেশে পাঁচজন সাংবাদিককে হত্যা করা হয়। ১৮ জন হুমকি পাওয়ার পাশাপাশি ৮৮ জন সাংবাদিক আক্রমণ ও ১০ জন নানাভাবে হয়রানির শিকার হন। এছাড়া সংবাদ প্রকাশের জন্য সাংবাদিকদের ক্যামেরা ও মোবাইল ফোন ভাংচুর করা হয়।

আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১৯:৪৯

২০১৮ ও ২০১৯ সালে দেশে পাঁচজন সাংবাদিককে হত্যা করা হয়। ১৮ জন হুমকি পাওয়ার পাশাপাশি ৮৮ জন সাংবাদিক আক্রমণ ও ১০ জন নানাভাবে হয়রানির শিকার হন। এছাড়া সংবাদ প্রকাশের জন্য সাংবাদিকদের ক্যামেরা ও মোবাইল ফোন ভাংচুর করা হয়।

সারা দেশের ১০৮টি ঘটনা বিশ্লেষণ করে প্রকাশিত ‘বাকস্বাধীনতা ও গণমাধ্যম: প্রবণতা ও করণীয়’ শীর্ষক গবেষণা প্রতিবেদনে এ তথ্য জানিয়েছে গণমাধ্যম উন্নয়ন ও যোগাযোগ বিষয়ক প্রতিষ্ঠান ‘‌সমষ্টি'। প্রভাবশালী, স্বার্থান্বেষী মহল, রাজনৈতিকভাবে শক্তিশালী ইত্যাদি পক্ষ এ ধরনের হামলাসহ হয়রানিমূলক তৎপরতায় জড়িত বলেও উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনটিতে।

জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচির (ইউএনডিপি) সহযোগিতায় পরিচালিত গবেষণা প্রতিবেদনে এসব বিষয়ে সরকার, স্থানীয় প্রশাসন ও গণমাধ্যম কর্তৃপক্ষের বিশেষ নজরসহ সাংবাদিকদের মধ্যে ঐক্য জোরদারেরও সুপারিশ করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

ঢাকার ডেইলি স্টার সেন্টারে মঙ্গলবার (২৩ ফেব্রুয়ারি) প্রতিবেদন উপস্থাপন অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ‘মতপ্রকাশের স্বাধীনতা বা বাকস্বাধীনতা একটি দেশের গণতান্ত্রিক পরিবেশ নির্মাণ ও সার্বিক উন্নয়নে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের মৌলিক বৈশিষ্ট্যই হলো, সেখানে মতপ্রকাশ ও স্বাধীনভাবে সংবাদ প্রকাশের অধিকার সুনিশ্চিত থাকবে। কোনো মতামতে কারও ব্যক্তিগত অনুভূতিতে আঘাত লাগতেই পারে, তিনি সংক্ষুব্ধ হতে পারেন। কিন্তু কারো মনে আঘাত লাগবে বলেই সে সম্পর্কে কেউ কিছু বলতে বা লিখতে পারবেন না, তা আমাদের বা কোনো গণতান্ত্রিক দেশের সংবিধানই বলে না।’

জাতীয় পর্যায়ের বিভিন্ন গণমাধ্যমের সিনিয়র সাংবাদিক, শিক্ষক, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমকর্মী ও সুশীল সমাজের ৪০ জন প্রতিনিধি অনুষ্ঠানে অংশ নেন।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, সাংবাদিকদের উপর চাপ আছে। কখনো করপোরেট, কখনো বিজ্ঞাপন বা প্রভাবশালী মহলের কাছ থেকে এসব চাপ আসে। কিন্তু এর বাইরেও আরো এক ধরনের চাপ আছে, যেটি অনেক সময় সাংবাদিকদের সেলফ-সেন্সরশিপে বাধ্য করে।

বক্তারা বলেন, বাংলাদেশে প্রায়ই ক্ষমতাধর ব্যক্তিকে সমালোচনার অভিযোগে মানহানির মামলা হয়ে থাকে। তাতে অভিযুক্তের হয়রানির শেষ নেই। দিনের পর দিন আদালতে ঘুরতে হয়। এক পর্যায়ে গিয়ে মীমাংসা হয় বটে, কিন্তু বাদী-বিবাদী উভয়পক্ষেরই অর্থ ও শ্রমের অপচয় হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন, ফিল্ম ও ফটোগ্রাফি বিভাগের শিক্ষক অধ্যাপক ড. এ জে এম শফিউল আলম ভুইয়ার সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন সমষ্টির পরিচালক চ্যানেল আইয়ের সিনিয়র বার্তা সম্পাদক মীর মাসরুর জামান। গবেষণার ফলাফল উপস্থাপন করেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মসূচি পরিচালক মীর সাহিদুল আলম।

অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন ঢাকা ট্রিবিউনের নির্বাহী সম্পাদক রিয়াজ আহমেদ, অপরাজেয় বাংলার সম্পাদক মাহমুদ মেনন খান, ইকোনমিক রিপোর্টার্স ফোরামের সভাপতি শারমিন রিনভী, সিনিয়র সাংবাদিক শুচি সৈয়দ, মীর মোস্তাফিজুর রহমান, লিটন হায়দার, গোলাম শাহানী প্রমুখ।

/এসআইএম/এআর/

Islami Bank Ad
হাজতির হদিস না পেয়ে জিডি

হাজতির হদিস না পেয়ে জিডি

ভাসানচরে রোহিঙ্গারা নিরাপদে আছে : বিশেষজ্ঞদের অভিমত

ভাসানচরে রোহিঙ্গারা নিরাপদে আছে : বিশেষজ্ঞদের অভিমত

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মিশন প্রধানরা, সহায়তা অব্যাহত রাখার ঘোষণা

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মিশন প্রধানরা, সহায়তা অব্যাহত রাখার ঘোষণা

৭ ও ১৭ মার্চ উপলক্ষে ডিএসসিসির কর্মসূচি

৭ ও ১৭ মার্চ উপলক্ষে ডিএসসিসির কর্মসূচি

যুক্তরাষ্ট্র থেকে এলো ট্রেনের ৮ ইঞ্জিন

যুক্তরাষ্ট্র থেকে এলো ট্রেনের ৮ ইঞ্জিন

ট্যাকা দেও, এক কেজি চাল কিনবো : কাঙ্গালিনী সুফিয়া

ট্যাকা দেও, এক কেজি চাল কিনবো : কাঙ্গালিনী সুফিয়া

চকবাজারে জুয়ার আসর থেকে আটক ২৫

চকবাজারে জুয়ার আসর থেকে আটক ২৫

ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টকে কবর দিতে হবে: জাফরুল্লাহ

ডিজিটাল সিকিউরিটি অ্যাক্টকে কবর দিতে হবে: জাফরুল্লাহ