সব
বুধবার, ০৩ মার্চ ২০২১, ১৮ ফাল্গুন ১৪২৭
 

করোনার বছরে বাংলাদেশের পাশে ছিল উবার

ফ্রন্টলাইন স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের নিরাপদ যাতায়াত ব্যবস্থা, সর্বোচ্চ নিরাপত্তা, মান ও সময়োপযোগী সার্ভিস নিশ্চিত ছাড়াও ডেটল, ফ্রেশ, ডিবিএল ফার্মা ও যান্ত্রিকের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ট্রান্সপোর্ট সেফটি অ্যালায়েন্স গঠনসহ এসব সহায়তার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে ‘ফিরে দেখা ২০২০: পর্যালোচনায় এক বছর’ শীর্ষক বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে উবার।

আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ২২:১০

করোনাকালে ত্রাণ বিতরণ, সর্বোচ্চ নিরাপত্তা ও সেবার মান নিশ্চিত এবং লকডাউনের পর বাংলাদেশের মানুষকে ধীরে ধীরে স্বাভাবিক জীবনযাপনে ফিরে যেতে নানাভাবে সহায়তা করেছে রাইড শেয়ারিং প্রতিষ্ঠান উবার।

ফ্রন্টলাইন স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের নিরাপদ যাতায়াত ব্যবস্থা, সর্বোচ্চ নিরাপত্তা, সেবার মান ও সময়োপযোগী সার্ভিস নিশ্চিত ছাড়াও ডেটল, ফ্রেশ, ডিবিএল ফার্মা ও যান্ত্রিকের সঙ্গে যুক্ত হয়ে ট্রান্সপোর্ট সেফটি অ্যালায়েন্স গঠনসহ এসব সহায়তার বিভিন্ন দিক তুলে ধরে ‘ফিরে দেখা ২০২০: পর্যালোচনায় এক বছর’ শীর্ষক বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে উবার।

বৃহস্পতিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) প্রকাশিত উবার অ্যাপস ব্যবহারের বিভিন্ন ইনসাইট ও তথ্যের ভিত্তিতে তৈরি প্রতিবেদনটিতে আরও জানানো হয়েছে, গত চার বছরে চার মিলিয়নেরও বেশি যাত্রীকে সেবা এবং এক লাখ ৭৫ হাজারেরও বেশি চালকের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করেছে প্রতিষ্ঠানটি।

প্রতিবেদনে উবার বলেছে, ফ্রন্টলাইন যোদ্ধাদের কাজে যেতে সাহায্য করা, প্রিয়জনকে কোনো জিনিস পাঠানো এবং চালকদের উপার্জনের ব্যবস্থা করে দেয়া ইত্যাদি বিভিন্ন প্রয়োজনে বিভিন্ন কমিউনিটির জন্য সব সময় সময়োপযোগী সার্ভিস তৈরি করে তারা।

১০ মিলিয়ন: ‘#মুভহোয়াটম্যাটার্স’– এর আওতায় সংকটকালে বিশ্বজুড়ে স্বাস্থ্যসেবা কর্মী, প্রবীণ ব্যক্তি ও অন্যদের জন্য বিনামূল্যে ১০ মিলিয়ন রাইড ও খাবার সরবরাহ করা হয়েছে। ঢাকায় দ্য আর্থ সোসাইটির সঙ্গে যুক্ত হয়ে তাদের ‘ক্র্যাক প্লাটুন’ প্রকল্পের মাধ্যমে ফ্রন্টলাইন স্বাস্থ্যসেবা কর্মীদের বাসা থেকে হাসপাতালে নিরাপদে যাতায়াতে গাড়িও সরবরাহ করেছে। ৪০টি হাসপাতালের ফ্রন্টলাইন স্বাস্থ্যসেবা কর্মীরা তাদের বাসা থেকে হাসপাতাল এবং হাসপাতাল থেকে বাসায় যাতায়াতে গাড়িগুলো ব্যবহার করেছেন।

৫০ মিলিয়ন ডলার: বিশ্বজুড়ে চালকদের স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা সামগ্রী কিনতে গত বছর ৫০ মিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছে উবার। বাংলাদেশে উবার চালকদের পাঁচ মিলিয়ন ডলার সমমূল্যের মাস্ক ও স্যানিটাইজার বিনামূল্যে সরবরাহ করা হয়েছে।

ট্রান্সপোর্ট সেফটি অ্যালায়েন্স: ব্যবহারকারীদের মধ্যে স্বাস্থ্যসচেতনতা তৈরি ও চালকদের স্বাস্থ্যঝুঁকি থেকে রক্ষায় টিস্যু, স্যানিটাইজার ও মাস্কসহ বিভিন্ন স্বাস্থ্য ও নিরাপত্তা সামগ্রী বিতরণ করতে ডেটল, ফ্রেশ, ডিবিএল ফার্মা এবং যান্ত্রিকের সঙ্গে ট্রান্সপোর্ট সেফটি অ্যালায়েন্স (টিএসএ) গঠনে নেতৃত্ব দিয়েছে উবার।

দুটি নতুন সার্ভিস: লকডাউন তুলে নেয়ার পর মানুষ যখন আবার চলাফেরা শুরু করেন, তখন ব্যবহারকারীদের প্রয়োজন অনুসারে নিরাপত্তাকে প্রাধান্য দিয়ে চালু করা হয় দুটি নতুন সার্ভিস ‘উবার কানেক্ট’ ও ‘উবার রেন্টালস’। উবার কানেক্টের মাধ্যমে গ্রাহকরা ঘরে বসেই নিরাপদে তাদের প্রয়োজনীয় জিনিস প্রিয়জনের কাছে পৌঁছে দিতে আর উবার রেন্টালসের মাধ্যমে যাত্রীরা এই নিউ নর্মালে একটি গাড়ি কয়েক ঘন্টার জন্য বুকিং দিয়ে একই সঙ্গে কয়েকটি জায়গায় যেতে পারেন।

ডিজিটাল পেমেন্ট: গত বছরের আগস্টে বিকাশের সঙ্গে পার্টনারশিপে ডিজিটাল পেমেন্ট অপশন চালু করে উবার। এর মাধ্যমে প্রত্যেক উবার ব্যবহারকারী সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে কোনো ধরনের নগদ অর্থ বহন না করেই নিরাপদে উবার ট্রিপের ভাড়া পরিশোধ করতে পারেন।

সার্বক্ষণিক অন-ট্রিপ সেফটি হেল্পলাইন সার্ভিস: গত বছরের নভেম্বর মাসে সার্বক্ষণিক সেফটি হেল্পলাইন সার্ভিস চালু হয়েছে, যা যাত্রীদের যাত্রাকালে বিভিন্ন জরুরি প্রয়োজনে যেমন, চালকের সঙ্গে কথা কাটাকাটি ও গাড়ি নষ্ট হয়ে যাওয়ার মতো ঘটনায় উবারের সেফটি টিমের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করিয়ে দেয়। উবার অ্যাপসের সেফটি টুলকিটে থাকা এসওএস ৯৯৯ বাটনের পাশাপাশি এই সেফটি হেল্পলাইন সার্ভিসটি যুক্ত করা হয়েছে। ৯৯৯ বাটন যাত্রীকে জরুরি অবস্থায় আইন প্রয়োগকারী সংস্থার সঙ্গে যোগাযোগে সহায়তা করে।

বাংলাদেশে চার বছর: গত বছর বাংলাদেশে কার্যক্রমের চার বছর পূর্ণ করেছে উবার। এই চার বছরে চার মিলিয়নেরও বেশি যাত্রীকে সেবা এবং এক লাখ ৭৫ হাজারেরও বেশি চালকের কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করেছে প্রতিষ্ঠানটি। বাংলাদেশে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে একটি বাটনের চাপে যাত্রীদের সুবিধাজনক, নিরাপদ ও সাশ্রয়ী যাতায়াত ব্যবস্থা নিশ্চিতের মাধ্যমে শহরগুলোকে এগিয়ে নিয়ে যেতেও দৃঢ় প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

উবার বলেছে, সচলতার মাধ্যমে নতুন সম্ভাবনা সৃষ্টি করাই তাদের লক্ষ্য। বাটনের এক চাপে যাতায়াতে গাড়ি পেতে প্রতিষ্ঠানটির কার্যক্রম শুরু হয় ২০১০ সালে। ১৫ বিলিয়নেরও বেশি ট্রিপ সম্পন্ন করার পর এখন সেসব সার্ভিস তৈরির প্রচেষ্টায় নিয়োজিত, যেগুলো একজন ব্যক্তিকে তার লক্ষ্যে পৌঁছাতে সাহায্য করে। শহরের যাতায়াত ব্যবস্থা, খাদ্য ও জিনিসপত্র আনা-নেয়ার পদ্ধতি বদলে দিয়েও সম্ভাবনার নতুন দ্বার উন্মোচন করেছে।

মিডিয়া যোগাযোগ: আকাংশা তারাগী, পলিসি কমিউনিকেশন, উবার [email protected], +৯১ ৮৩৭৬৯৫৫৪৪০ এবং সেজানুর রহমান, অ্যাকাউন্ট ম্যানেজার, বেঞ্চমার্ক পিআর, [email protected], +৮৮ ০১৭২২৪৬৮৫০৭

/এআর/

 

লাইফস্টাইল বিভাগে লেখা পাঠানোর ঠিকানা : ‍[email protected]

সাম্প্রতিক

ম্যাক্সওয়েলের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ২০৮

ম্যাক্সওয়েলের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ ২০৮

ভুয়া এনআইডি কার্ড দিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করতো চক্রটি

ভুয়া এনআইডি কার্ড দিয়ে অর্থ আত্মসাৎ করতো চক্রটি

রাজশাহীতে কৃষকদের মানববন্ধন

রাজশাহীতে কৃষকদের মানববন্ধন

পরীক্ষার দাবিতে ডুয়েট শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

পরীক্ষার দাবিতে ডুয়েট শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

মেয়েকে দিয়ে যৌন ব্যবসা করানোর দায়ে মা কারাগারে

মেয়েকে দিয়ে যৌন ব্যবসা করানোর দায়ে মা কারাগারে

কোভ্যাক্সের টিকা আসছে মার্চের মধ্যে: স্বাস্থ্যসচিব

কোভ্যাক্সের টিকা আসছে মার্চের মধ্যে: স্বাস্থ্যসচিব

বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৩

উদ্বোধনের আগেই সেতুর ভাঙন: তদন্তে দুই কমিটি গঠন

উদ্বোধনের আগেই সেতুর ভাঙন: তদন্তে দুই কমিটি গঠন

শরীরে পানি কেন প্রয়োজন?

শরীরে পানি কেন প্রয়োজন?

শেখাতে হবে সঠিক আচরণ

শেখাতে হবে সঠিক আচরণ

শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রভাতফেরিতে...

শহীদদের শ্রদ্ধা জানাতে প্রভাতফেরিতে...

ডাকটিকিটে শহীদ মিনার

ডাকটিকিটে শহীদ মিনার