সব
বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১, ১২ ফাল্গুন ১৪২৭
DBBL Ad

সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনও

১৮ দিনে রেমিট্যান্স এল ১০ হাজার ৮৬০ কোটি টাকা

করোনার ঢেউ: গতি ফিরেছে পণ্য আমদানিতে

কোভিড-১৯-এর কারণে আমদানি অনেক কমে গিয়েছিল। এখন বাড়তে থাকায় স্বস্তি ফিরে আসছে। শিল্প স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় ক্যাপিটাল মেশিনারি (মূলধনি যন্ত্রপাতি), শিল্পের কাঁচামাল, জ্বালানি তেলসহ সব ধরনের পণ্যের আমদানিই কমে গিয়েছিল। এখন সবই বাড়তে শুরু করেছে

আপডেট : ১৭ জানুয়ারি ২০২১, ১২:৪১

করোনা মহামারির প্রভাবে গত মার্চ থেকে তলানিতে থাকা পণ্য আমদানিতে এবার গতি ফিরতে শুরু করেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে বেশি পরিমাণে কাঁচামাল ও ভোগ্যপণ্য আমদানি বেড়েছে। গত নভেম্বরে দেশে ৪৮১ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি হয়েছে, যা মহামারি শুরুর পর সবচেয়ে বেশি বলে মনে করছে বাংলাদেশ ব্যাংক। তবে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের কারণে সামনের দিনগুলোতে এ ধারা অব্যাহত রাখা অনেকটাই চ্যালেঞ্জ বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

বাংলাদেশ ব্যাংকের হালনাগাদ প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত বছরের নভেম্বরে দেশে ৪৮১ কোটি ৮৪ লাখ ডলারের বিভিন্ন ধরনের পণ্য আমদানি হয়েছে। আমদানির এই অঙ্ক আগের বছরের নভেম্বরের তুলনায় ৯ দশমিক ৭০ শতাংশ বেশি। ২০১৯ সালের নভেম্বরে দেশে ৪৩৯ কোটি ২৪ লাখ ডলারের পণ্য আমদানি হয়েছিল।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদনে দেখা যায়, গত নভেম্বর শেষে ভোগ্যপণ্য আমদানির এলসি খোলা বেড়েছে ১৯ শতাংশের বেশি। আমদানি বেড়েছে পৌনে ২৯ শতাংশ। শিল্পের যন্ত্রপাতি, কাঁচামাল, মধ্যবর্তী পণ্য, জ্বালানি তেল ও অন্যান্য খাতে এলসি খোলার হার কিছুটা বেড়েছে।

অর্থনীতিবিদ ও ব্যবসায়ীরা জানান, বাংলাদেশের অর্থনীতি মূলত আমদানিনির্ভর। ভোগ্যপণ্য যেমন আমদানি করতে হয়, তেমনি সব শিল্পের যন্ত্রপাতি ও কাঁচামালের চাহিদাও মেটাতে হয় আমদানি করে। এর বাইরে জ্বালানি তেল পুরোটাই আমদানিনির্ভর। নিত্যপণ্যের মধ্যে সব ধরনের মসলা, পেঁয়াজ, চাল, ডাল, গম, ভোজ্যতেল এগুলোও আমদানি করতে হয়।

এসব পণ্য ঘিরে দেশে গড়ে উঠেছে বহুমুখী ব্যবসাকেন্দ্র। করোনার মহামারির শুরুতে আমদানি কমার কারণে শিল্প খাতে পণ্যের উৎপাদন যেমন কম হয়েছে, তেমনি পণ্যের সরবরাহ, পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ও এর নেতিবাচক প্রভাব পড়েছিল। তবে ধীরে ধীরে আমদানি সংকট কেটে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন থেকে পাওয়া তথ্যে দেখা যায়, দেশের মোট রপ্তানির ৮২ শতাংশই আসে তৈরি পোশাক থেকে। এর বিপরীতে মূল্য সংযোজন হচ্ছে ৫৬ শতাংশ। বাকি ৪৪ শতাংশই আমদানিনির্ভর।

বাংলাদেশ ব্যাংকের প্রতিবেদন থেকে দেখা যায়, গত নভেম্বরে চাল আমদানির এলসি খোলা বেড়েছে সাড়ে ৩১ শতাংশ। ইতোমধ্যে সরকার বিপুল পরিমাণে চাল আমদানি শুরু করেছে। গমের এলসি বেড়েছে সাড়ে ৮ শতাংশের বেশি, একই সঙ্গে আমদানিও বেড়েছে সাড়ে ৭০ শতাংশ।

চিনির এলসির সোয়া ১৬ শতাংশ, আমদানি বেড়েছে প্রায় দেড় শতাংশ। পেঁয়াজের এলসি বেড়েছে সাড়ে ২৭ শতাংশ, আমদানি বেড়েছে সোয়া ১২ শতাংশ। তাজা ও শুকনা ফলের এলসি ৩৪ শতাংশ ও আমদানি বেড়েছে সোয়া ১২ শতাংশ। সব ধরনের ডাল আমদানির এলসি খোলা বেড়েছে সোয়া ১৮ শতাংশ, আমদানি বেড়েছে পৌনে ১৮ শতাংশ। দুগ্ধজাত পণ্যের এলসি বেড়েছে সাড়ে ২০ শতাংশ এবং আমদানি কমেছে সাড়ে ৯ শতাংশ। ভোজ্যতেলের এলসি ৩৪ শতাংশ ও আমদানি বেড়েছে পৌনে ৪৩ শতাংশ। ওষুধের এলসি খোলা বেড়েছে প্রায় ৭০ শতাংশ, আমদানি বেড়েছে সোয়া ৪৪ শতাংশ। সুতা ও সিনথেটিক ফাইবার আমদানির এলসি খোলা বেড়েছে ১৫ শতাংশের বেশি।

২০২০ সালের প্রথম মাস জানুয়ারিতে ৫৩৩ কোটি ৪১ লাখ ডলারের পণ্য আমদানি করেছিল বাংলাদেশ। পরের দুই মাস ফেব্রুয়ারি ও মার্চে আমদানি হয় যথাক্রমে ৪৭২ কোটি ৩৭ লাখ ডলার ও ৪২৭ কোটি ৭২ লাখ ডলারের পণ্য। এরপরেই লাগে করোনাভাইরাসের মহামারির ধাক্কা। সেই ধাক্কায় এপ্রিলে আমদানি ব্যয় ২৮৫ কোটি ৮৫ লাখ ডলারে নেমে আসে, যা ছিল বহু বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। গত মে ও জুন মাসে যথাক্রমে ৩৫৩ কোটি ৩৪ লাখ ও ৪৮০ কোটি ৭৯ লাখ ডলারের পণ্য আমদানি করে বাংলাদেশ।

চলতি ২০২০-২১ অর্থবছরের প্রথম মাস জুলাইয়ে ৪২২ কোটি ৪০ লাখ ডলারের পণ্য আমদানি হয়। আগস্টে হয় ৩৮০ কোটি ৬০ লাখ ডলারের পণ্য। সেপ্টেম্বর ও অক্টোবরে আমদানি খাতে ব্যয় হয় যথাক্রমে ৪৬৫ কোটি ২৫ লাখ এবং ৪৩৫ কোটি ৫৮ লাখ ডলার। নভেম্বরে তা ৪৮১ কোটি ছাড়িয়ে যায়। এ অর্থবছরের পাঁচ মাসে (জুলাই-নভেম্বর) মোট ২ হাজার ১৮৮ কোটি ডলারের পণ্য আমদানি হয়েছে, যা আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ৮ দশমিক ৮১ শতাংশ কম।

বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্যে দেখা যায়, ২০১৯-২০ অর্থবছরে বাংলাদেশ বিভিন্ন দেশ থেকে মোট ৫৪ দশমিক ৭৮ বিলিয়ন ডলারের পণ্য আমদানি করেছিল, যা ছিল আগের অর্থবছরের (২০১৮-১৯) চেয়ে ৮ দশমিক ৫৬ শতাংশ কম।

পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক আহসান মনসুর ‘সারাক্ষণ’কে বলেন, ‘কোভিড-১৯-এর কারণে আমদানি অনেক কমে গিয়েছিল। এখন বাড়তে থাকায় স্বস্তি ফিরে আসছে। শিল্প স্থাপনের জন্য প্রয়োজনীয় ক্যাপিটাল মেশিনারি (মূলধনি যন্ত্রপাতি), শিল্পের কাঁচামাল, জ্বালানি তেলসহ সব ধরনের পণ্যের আমদানিই কমে গিয়েছিল। এখন সবই বাড়তে শুরু করেছে। এটা একটা ভালো খবর।’

 

/এনএম/

সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনও

সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনও

১৮ দিনে রেমিট্যান্স এল ১০ হাজার ৮৬০ কোটি টাকা

১৮ দিনে রেমিট্যান্স এল ১০ হাজার ৮৬০ কোটি টাকা

রিজার্ভ ছাড়াল ৪৪ বিলিয়ন ডলার

রিজার্ভ ছাড়াল ৪৪ বিলিয়ন ডলার

Islami Bank Ad

জনপ্রিয়

তরুণ প্রজন্মের কেন দেশত্যাগের প্রতি আগ্রহ বেশি

তরুণ প্রজন্মের কেন দেশত্যাগের প্রতি আগ্রহ বেশি

কানাডায় ইএসএল টিচারদের সুযোগ ও সম্ভাবনা

কানাডায় ইএসএল টিচারদের সুযোগ ও সম্ভাবনা

মাহি,ফারিয়া ও পূজা চেরির পর জাজের নতুন মুখ কে?

মাহি,ফারিয়া ও পূজা চেরির পর জাজের নতুন মুখ কে?

স্পষ্টভাষী ইব্রাহিম খালেদ আমাদের মনে জাগরূক থাকবেন

স্পষ্টভাষী ইব্রাহিম খালেদ আমাদের মনে জাগরূক থাকবেন

মোহাম্মদপুরের শীর্ষ সন্ত্রাসী ডিস টিপু অস্ত্রসহ আটক

মোহাম্মদপুরের শীর্ষ সন্ত্রাসী ডিস টিপু অস্ত্রসহ আটক

চবিতে পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে সমাবেশ, সিদ্ধান্ত সোমবার

চবিতে পরীক্ষা স্থগিতের প্রতিবাদে সমাবেশ, সিদ্ধান্ত সোমবার

জয়কে নিয়ে সিঙ্গাইরে হ্যাটট্রিক জয় চায় বিএনপি

জয়কে নিয়ে সিঙ্গাইরে হ্যাটট্রিক জয় চায় বিএনপি

রাবিতে ৫ ছাত্র সংগঠনের আন্দোলনের ঘোষণা

রাবিতে ৫ ছাত্র সংগঠনের আন্দোলনের ঘোষণা